বৈঠক বানচাল হওয়ার পর ট্রাম্প-কিম দ্বৈরথ চলছে

Spread the love

ভিয়েতনামে, মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং উত্তর কোরিয়ার স্বৈরশাসক কিম জং উনের মধ্যে ঘটে যাওয়া বহু প্রতীক্ষিত বৈঠক ব্যর্থ হয়েছে।

কিমের সাথে বৈঠকের দুই দিন পর ট্রাম্প সাংবাদিকদের জানান, “কখনও কখনও বৈঠক ছেড়ে আসতে হয়।” কিন্তু তিনি বলেন, তিনি আশা করছেন যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং উত্তর কোরিয়ার মধ্যস্থতাকারীরা নিজেদের মধ্যে কথা বলবেন।

তিনি বলেন, কিম প্রস্তাব দিয়েছেন যে উত্তর কোরিয়া তাদের গুরুত্বপূর্ণ পারমাণবিক কেন্দ্রগুলি বন্ধ করতে পারে, যদি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কিমের দেশের উপর থেকে কঠোর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়। কিন্ত তাদের অস্ত্র কর্মসূচির অন্যান্য প্রকল্পগুলির ক্ষেত্রে কিম এই নির্দেশ দেবেন না।

ট্রাম্প বলেন, এই বক্তব্যের জন্য চুক্তিটি বাতিল হয়।

“তাদের বক্তব্যটা নিষেধাজ্ঞা সম্পর্কে ছিল,” ট্রাম্প বলেন। “মূলত তারা তাদের সামগ্রিকভাবে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার চেয়েছিলেন, কিন্তু আমরা তা করতে পারিনা।”

কিন্তু মধ্যরাতের সাংবাদিক বৈঠকে, উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিং ইং-হো, ট্রাম্পের বিরোধিতা করে বলেন, উত্তর কোরিয়া কেবলমাত্র আমেরিকান বিশেষজ্ঞদের উপস্থিতিতে “স্থায়ী এবং পুরোপুরিভাবে” প্রধান পারমানবিক প্রকল্পটি বন্ধ করার পরিবর্তে কিছু নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের জন্য অনুরোধ করেছিল।

রি সাংবাদিকদের বলেন, “উত্তর কোরিয়া এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে বর্তমান বিশ্বাসের সম্পর্কের উপর ভিত্তি করে, পারমাণবিক প্রকল্প বন্ধ করার জন্য এটাই আমাদের পক্ষ থেকে নেওয়া সব থেকে বড় পদক্ষেপ ছিল, যা আমরা প্রদান করতে পারতাম।”

তিনি যোগ করেছেন যে উত্তর কোরিয়া অবস্থান পরিবর্তন করবে না।
তিনি বলেন  “এই ধরনের সুযোগ আবার নাও আসতে পারে” ।

যাইহোক, ট্রাম্প কিমকে প্রশংসা করতে অব্যাহত ছিলেন, তাকে “বেশ লোক এবং বেশ একটা চরিত্র” বলে অভিহিত করেছিলেন এবং বলছিলেন যে এরকম একজন মানুষের সাথে তার আলাপ পরিচয় যথেষ্ট উষ্ণ ছিল, যিনি বিশ্বে নির্দয় স্বৈরশাসক হিসাবে বিবেচিত হন।

ট্রাম্প এছাড়াও বলেন এখনি সব শেষ হয়ে যায়নি। তিনি বলেন, “এটা এমন ঘটনা নয় যে আপনি চেয়ার ছেড়ে উঠলেন আর বৈঠক ছেড়ে বেরিয়ে গেলেন। না, এটা খুব বন্ধুত্বপূর্ণ বৈঠক ছিল। আমরা করমর্দনও করেছি। “

তিনি যোগ করেন, “আমাদের মধ্যে যে উষ্ণতা বিরাজ করছিল আশা করি সেটা বিদ্যমান থাকবে।”

ট্রাম্প বলেছেন যে কিম তার পারমাণবিক ও ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার স্থগিত রাখার যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তা এখন 16 তম মাসে রয়েছে, এবং আলোচনার বিষয়টি অব্যাহত থাকবে। রি এছাড়াও নিশ্চিত করেন উত্তর কোরিয়া পুনরায় এই পরীক্ষা শুরু করবেনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *