ঋণে জর্জরিত এয়ার ইন্ডিয়ার ও তার সহযোগী ও যৌথ উদ্যোগের বিলগ্নীকরণের জন্য নরেন্দ্র মোদি সরকার একটি এসপিভি তৈরির অনুমোদন দিয়েছে

Spread the love

সরকারী বিবৃতি অনুসারে, এয়ার ইন্ডিয়া ও তার সহযোগী ও যৌথ উদ্যোগের বিলগ্নীকরণের জন্য নরেন্দ্র মোদি সরকার একটি এসপিভি তৈরির অনুমোদন দিয়েছে।

এয়ার ইন্ডিয়া অ্যাসেট হোল্ডিং লিমিটেড (এআইএইচএলএল) নামে একটি এসপিভি গত বছরের 22 জানুয়ারি গঠিত হয়। ঋণে জর্জরিত এই জাতীয় ক্যারিয়ারের আর্থিক পুনর্গঠনের জন্য।

এ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “সরকার নতুন করে তৈরি এসপিভিতে এয়ার ইন্ডিয়া লিমিটেডের  29,464 কোটি টাকা ঋণ এবং এয়ার ইন্ডিয়া লিমিটেডের অস্থায়ী সম্পদ, চিত্রকলা এবং শিল্পকর্ম এবং অন্যান্য অকার্যকরী সম্পত্তি  হস্তান্তর করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।”

তাছাড়াও সরকার জানিয়েছে যে “যে সকল সহায়ক সংস্থাগুলি এয়ার ইন্ডিয়ার কৌশলগত বিনিময়ের অংশ নয়, যেমন, এআইএইচএসএল (এয়ার ইন্ডিয়া এয়ার ট্রান্সপোর্ট সার্ভিসেস লিমিটেড), এআইইএলএল (এয়ার ইন্ডিয়া ইঞ্জিনিয়ারিং সার্ভিসেস লিমিটেড), এএএসএল (এয়ারলাইন অ্যালাইড সার্ভিসেস লিমিটেড) সেগুলিও এসপিভিতে স্থানান্তরিত হবে।”

সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানায়, সরকার এয়ার ইন্ডিয়া এর ভাগ্য পুনরুজ্জীবিত করার পথে কাজ করছে, যার ঋণের বোঝা আনুমানিক 55,000 কোটি টাকা ।

এসপিভির পরিচালনা পর্ষদের পরিচালক হিসেবে নিয়োজিত হয়েছেন এয়ার ইন্ডিয়ারই চেয়ারম্যান এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর। এতে কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স, ইনভেস্টমেন্ট এবং পাবলিক অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট, এক্সপেন্ডিচার, অর্থনৈতিক বিষয়গুলির যৌথ সচিবরা বোর্ড অফ ডিরেক্টরসে রয়েছেন।

1 ফেব্রুয়ারি উপস্থাপন করা অন্তর্বর্তীকালীন বাজেট অনুযায়ী সরকার নতুন এসপিভিতে, এয়ার ইন্ডিয়ার ঋণের স্থানান্তকরণের জন্য 3,900 কোটি টাকা দেবে।

এর আগে একটি সাংবাদিক সম্মেলনে অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বলেছেন, “এয়ার ইন্ডিয়া এবং তার সহযোগী সংস্থাগুলির এবং তার অবশিষ্ট সম্পদের বিনিময়ের জন্য একটি এসপিভি’র অন্তর্ভুক্তির অনুমোদন পেয়েছে।”

2019 -20 সালের অন্তর্বর্তীকালীন বাজেটে উপস্থাপিত নথি অনুযায়ী, সরকার এই অর্থবছরে এই এসপিভির জন্য 1,300 কোটি টাকা বরাদ্দ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। পাশাপাশি আগামী অর্থবছরে 2,600 কোটি টাকা সরবরাহ করা হবে।

সরকারি প্রেস বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “কেন্দ্রীয় মন্ত্রিপরিষদ এই এসপিভি গঠনের জন্য বিশেষ অনুমোদন দিয়েছে যাতে এয়ার ইন্ডিয়া এবং তার সহায়ক / যৌথ উদ্যোগ সংস্থা  গুলির বিলগ্নীকরণ সম্পন্ন করা সম্ভব হয়।

2007 সালে ইন্ডিয়ান এয়ারলাইন্সের সাথে মিলিত হওয়ার পর থেকে জাতীয় ক্যারিয়ারটি সংকটে চলছিল। 2012 সালে পূর্ববর্তী ইউপিএ সরকার দ্বারা বর্ধিত একটি বেলআউট প্যাকেজের সুবিধা নিয়ে এয়ার ইন্ডিয়া সংস্থাটি এতদিন কার্যকর থাকতে পেরেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *