দাবোলকর হত্যা মামলায় সিবিআই সনাতন সংস্থার দুজন সেচ্ছাসেবককে দোষী সাবস্ত করেছে

Spread the love

নরেন্দ্র দাবোলকর হত্যা মামলায় সিবিআই একটি সাপ্লিমেন্টারি চার্জশীট দাখিল করেছে। সিবিআই এই হত্যাকাণ্ডটিকে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ বলে অভিযোগ করে, সাপ্লিমেন্টারী চার্জশীটে সনাতন সংস্থার দুজন স্বেচ্ছাসেবক শচীন আন্দুরে এবং শরদ কলস্করের নাম দিয়েছে।

আন্দুরে এবং কলস্কর দুজনেই মহারাষ্ট্রের ঔরঙ্গবাদের বাসিন্দা। চার্জশীটে ভারতীয় দণ্ডবিধির ধারা 16 এর অধীনে বেআইনি কার্যকলাপ (প্রতিরোধ) আইন বা ইউএপিএ, এবং ধারা 302 (খুন) এবং ধারা 120 (বি) অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে। সূত্রের খবর, 20 আগস্ট 2013 তারিখে কলস্কর দাবোলকরকে দুইবার গুলি করে হত্যা করে, এবং আন্দুরেও দাবোলকরের বুকে একটা গুলি করে।

সিবিআই কর্তৃক দায়ের করা সাপ্লিমেন্টারী চার্জশিট থেকে আরও জানা যায় যে, সনাতন সংস্থার সদস্য ডঃ বীরেন্দ্র তাওড়ে মতাদর্শগত পার্থক্যের কারণে অন্ধশ্রদ্ধা নির্মূলন সমিতির প্রতিষ্ঠাতা নরেন্দ্র দবোকরের প্রতি শত্রুভাবাপন্ন মনোভাব পোষণ করছিল।

চার্জশীট অনুযায়ী, তাওড়ে ও সহ-ষড়যন্ত্রকারী আন্দুরে ও কলস্কর 2013 সালের 20 শে আগস্ট, দাভোলকরকে হত্যা করেছিল। চার্জশীট থেকে জানা যায়, তাওড়ে, আন্দুরে, কলস্কর ও অন্য অভিযুক্ত অমল কালে ওরঙ্গাবাদ থেকে বাসে করে ২5 আগস্ট যথাক্রমে সকাল 4.30টে এবং সকাল 6.45য়ে শিবাজী নগর পৌঁছয়। আন্দুরে ও কলস্কর জংলি মহারাজ রোড ধরে ওমকারেশ্বর সেতুর দিকে চলে যায় এবং অমল সুপার মার্কেটের কাছে পৌঁছয়। কালে সেখানে তাদের জন্য একটি স্প্লেন্ডর বাইকের ব্যবস্থা করে রেখেছিল। তারা বাইকটিকে সনাক্ত করে এবং তাদের কাছে থাকা ডুপ্লিকেট চাবি দিয়ে বাইকটি চালু করে। কালে তাদের জানায় কিভাবে তারা ওখান থেকে পালাবে, কোথায় খুন করার পর জামাকাপড় নষ্ট করবে আর কোথায় বাইক আর অস্ত্র লোকাবে।

চার্জশিট থেকে আরও জানা যায়, আন্দুরে বাইক চালিয়ে কলস্করকে শনিবার পেঠের প্রবেশদ্বারে নামিয়ে দেয়। এরপর আন্দুরে, দাবোলকরের অ্যাপার্টমেন্ট থেকে 20 মিটার দূরে গিয়ে অপেক্ষা করে। সকাল 7 টার, আন্দুরে দাবোলকরকে হেঁটে কলস্করের দিকে যেতে দেখে। দাবোলকর তখন তার প্রতিবেশীর সাথে কথা বলছিল আর অন্যদিকে আন্দুরে দাবোলকরের পরিচয় অন্য একজন পথচারীর কাছ থেকে নিশ্চিত করে। কলস্কর দাবোলকরের দিকে পিস্তল নিয়ে দৌড়তে শুরু করে আর আন্দুরেও তাকে অনুসরণ করে।

কলস্কর গুলি চালায় আর বুলেট দাবোলকরের ডান কানের পেছনে আর পেটে আঘাত করে। দাবোলকরের মাটিতে পড়ে গেলে, আন্দুরে তাওড়ে ও কালের নির্দেশ অনুযায়ী তার বুকে গুলি করে।

সিবিআই মামলার সাক্ষী সোমনাথ ধাওড়ের বক্তব্য রেকর্ড করে, সোমনাথ 2012 সাল থেকে আন্দুরেকে চিনত।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *