গবেষণায় বলা হয়েছে, জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য বিশ্বব্যাপী 70 ট্রিলিয়ন ডলার খরচ হবে

Spread the love

নেচার কমিউনিকেশন্সে প্রকাশিত একটি গবেষণায় বলা হয়েছে, জলবায়ু পরিবর্তন এবং আর্কটিক বরফের গলন আমাদের জন্য একটি ব্যয়বহুল সমস্যা হতে চলেছে। এর জন্য বিশ্বব্যাপী আমাদের 70 ট্রিলিয়ন ডলার খরচ হবে।

গ্লোবাল ওয়ার্মিংয়ের ক্ষতিকারক বৃত্তের মতো, পৃথিবীর তাপমাত্রার বৃদ্ধির কারণে আর্কটিক বরফের ক্রমাগত গলনের কারণে বায়ুমণ্ডলে কার্বনের পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। গবেষণায় জানা যায়, বিশ্ব অর্থনীতিতে এটি সাংঘাতিক প্রভাব ফেলবে।

আমরা যদি পরিবর্তনগুলি সংশোধন করার উপায় খুঁজে না পাই তবে এটি একটি ব্যয়বহুল অর্থনৈতিক পরিণতি হতে চলেছে।

এই গবেষণায় আরও উল্লেখ করা হয়েছে যে, প্যারিস চুক্তির প্রস্তাবিত পরামর্শগুলি অনুসরণ করে, এই শতাব্দীতে পৃথিবীর তাপমাত্রার ক্রমাগত বৃদ্ধি 1.5 ডিগ্রী সেলসিয়াস এর মধ্যে বৃদ্ধি রাখলেও, আমাদের অনেক টাকার ক্ষতি হবে। তবে, এই ক্ষতি অনেক কম হবে।

একটি নতুন গবেষণায় জানা গেছে যে, আলাস্কান লেকের গলে যাওয়া বরফ আগের থেকে প্রায় 12 গুণ বেশী নাইট্রাস অক্সাইড ত্যাগ করছে। নাইট্রাস অক্সাইড অন্য একটি গ্লোবাল ওয়ার্মিং গ্যাস কিন্তু তাপ ধরে রাখার ক্ষেত্রে কার্বন ডাই অক্সাইডের চেয়ে প্রায় 300 গুণ বেশি সক্ষম। এটি ওজোন স্তরে ক্ষতি করে।

কেভিন শেফার তার গবেষণায় বলেছেন, “জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে আমরা উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ পরীক্ষা চালাচ্ছি যেখানে আমরা জানি না কি আসতে চলেছে”। “আমাদের গবেষণার সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, যত বেশী তাপমাত্রা বাড়বে, তার প্রতিক্রিয়া তত শক্তিশালী হবে এবং সমাজকে এর জন্য তত বেশী দাম দিতে হবে।”

তিনি বলেন, আমরা ইতিমধ্যে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবের সম্মুখীন হচ্ছি এবং এর দাম দিচ্ছি। লো-কার্বন ইকোনমিতে পরিবর্তন হওয়া 21 শতকের সবথেকে বড় ব্যবসার সুযোগ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *