খাশোগী হত্যা মামলায় উচ্চ পদস্থ রয়্যাল পরামর্শদাতারা অনুপস্থিত

Spread the love

দুই শীর্ষ সৌদি রাজপরিবারের উপদেষ্টা সাংবাদিক জামাল খাশোগীর হত্যার সাথে জড়িত। একজনকে “রিংলিডার” লেবেল করা হয়েছে তবে কর্মকর্তাদের মতে, শুধুমাত্র একজনকে বিচারের মুখোমুখি হতে হচ্ছে।


সংবাদ সংস্থা এএফপি জানায়, সৌদি প্রসিকিউটররা বলেছে, ডেপুটি ইন্টেলিজেন্স চীফ আহমেদ আল-আসিরি গত অক্টোবরে রাজ্যের ইস্তানবুল কনস্যুলেটে ওয়াশিংটন পোস্টের কলামিস্টের হত্যাকান্ডের তত্ত্বাবধানে ছিলেন এবং রয়্যাল আদালতের মিডিয়া কাযার সৌদ আল-কাহতানি তাকে পরামর্শ দেন।

ওয়েস্টার্ন অফিসিয়াল এর চারজন কর্মকর্তার মতে, দুজন সহায়কই মহম্মদ বিন সালমানের আঁটসাঁট নিরাপত্তা গন্ডির অংশ এবং প্রাথমিকভাবে হত্যার জন্য তাদের বহিষ্কার করা হয় কিন্তু জানুয়ারি থেকে হওয়া পাঁচটি শুনানিতে শুধুমাত্র আসিরি হাজির ছিলেন।

ওই কর্মকর্তাদের একজন জানান, “যে 11 জন বিচারের মুখোমুখি হয়েছে কহতানি তাদের মধ্যে নন।”

“তার অনুপস্থিতির কারণ কি? সৌদিরা কি তাকে বাঁচাতে চাইছে না আলাদাভাবে তার বিচার করতে চাইছে? কেউ জানে না।”

রাজ্যের পাবলিক প্রসেকিউটার গত নভেম্বরে 11 জন বেনামী সন্দেহভাজনের উল্লেখ করেন, এবং হত্যার জন্য এদের মধ্যে পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড হতে পারে।

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য – মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, ফ্রান্স, চীন, রাশিয়া – এবং তুরস্কের কূটনীতিকদের সম্পূর্ণরূপে আরবিতে অনুষ্ঠিত আইনি কার্যধারার পর্যবেক্ষক হিসাবে উপস্থিত হওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়।

সূত্র জানায়, তারা দোভাষীকে আনতে অনুমতি দেয় না এবং সাধারণত তাদের সংক্ষিপ্ত নোটিশে ডাকা হয়।

খাশোগী পরিবারের একজন প্রতিনিধি যিনি এই মাসে সৌদি সরকারের সাথে মীমাংসা হওয়ার কথা অস্বীকার করেছিলেন শেষপর্যন্ত আদালতের একটি অধিবেশনে উপস্থিত হয়েছিলেন, তারা জানায়।

কর্মকর্তারা জানায়, অভিযুক্ত 11 জন যাদের বিচারে মৃত্যুদণ্ড হতে পারে, তাদের মধ্যে রয়েছে, মুত্রেব, একজন ইন্টেলিজেন্স অপারেটিভ যিনি প্রায়শই রাজকুমারের সাথে বৈদেশিক সফরে যেতেন, ফরেন্সিক এক্সপার্ট সালাহ আল-তুবাইগি এবং সৌদি রয়্যাল গার্ডের সদস্য ফাহাদ আল-বালাওয়ি।

আসামীদের আইনি পরামর্শ নেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়।

তাদের মধ্যে অনেকেই এটা বলে নিজেদের বাঁচাতে চায় যে তারা আসিরির আদেশ পালন করছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *