ধর্ষণের অভিযোগে আসারামের পুত্র নারায়ণ সাইকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডের সাজা দিয়েছে দায়রা আদালত

Spread the love

সুরাট দায়রা আদালত স্বঘোষিত দেবদূত জেলবন্দী আসারাম বাপুর ছেলে নারায়ণ সাইকে, একজন প্রাক্তন শিষ্যার দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতে ধর্ষণের অপরাধে যাবজ্জীবন কারাদন্ডের সাজা দিয়েছে।

ধর্ষণ, অস্বাভাবিক যৌনসংগম, শারীরিক আক্রমণ, এবং অন্যদের মধ্যে ভীতি প্রদর্শনের অভিযোগে আদালত সাইকে দোষী সাব্যস্ত করেছে। 2013 সালে নারায়ণ সাইয়ের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করা হয় যখন সুরাটের দুজন মহিলা ভক্ত তার এবং তার বাবার বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ করেছিল।

অতিরিক্ত দায়রা জজ পি এস গধভি 47 বছর বয়সী সাইকে মৃত্যুদন্ড দিয়েছিলেন এবং এক লাখ টাকা জরিমানা করেছিলেন।

আক্রান্তকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে 5 লাখ টাকা দিতে সাইকে নির্দেশ দেয় আদালত।

26 এপ্রিল মামলার রায় ঘোষণার সময় আদালত ওই 11 জনের মধ্যে পাঁচজনকে দোষী সাব্যস্ত করে এবং বাকিদের রেহাই দেয়।

তাদের অভিযোগে, ওই দুই মহিলা দাবি করেছন যে তারা আসারাম ও তার ছেলে নারায়ণ স্বামীর দ্বারা ধর্ষিত হন। ওই দুই মহিলার মধ্যে বড় বোন অভিযোগ করেন, 1997 থেকে 2006 সালের মাঝামাঝি সময়ে গুজরাটের রাজধানী আহমেদাবাদে আসারাম তার নিজের আশ্রমে তাকে ধর্ষণ করেছিল, এবং অন্যদিকে ছোট বোন আসারামের ছেলে নারায়ণ সাইয়ের বিরুদ্ধে 2002 থেকে 2005 সাল পর্যন্ত সুরাটে তার আশ্রমে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত করেছিলেন। দুই বোনের দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতে, পুলিশ 2013 সালের ডিসেম্বরে নারায়ণ সাইকে গ্রেপ্তার করেছে।

গত বছরের এপ্রিল মাসে একটি ধর্ষণের মামলায় যোধপুর আদালতে আসারামকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছিল এবং যাবজ্জীবন কারাদন্ডে দন্ডিত করা হয়েছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *